রাজনৈতিক স্বার্থসিদ্ধির জন্যেই সিএএ ও এনআরসির বিরোধিতা করা হচ্ছে, অভিযোগ আরএসএস প্রধানের

আমাদের ভারত, ২২ জুলাই:সিটিজেনশিপ অ্যামেন্ডমেন্ট অ্যাক্ট বা সিএএ এবং ন্যাশনাল রেজিস্টার অফ সিটিজেনস বা এনআরসির পক্ষে আবারো জোরালো সওয়াল করলেন আরএসএস প্রধান। একই সঙ্গে দেশবাসীর উদ্দেশ্যে মোহন ভাগবত বার্তা দিলেন সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখার। তাঁর অভিযোগ, নিজেদের স্বার্থসিদ্ধি করতেই একাংশ সিএএ এবং এনআরসির ওপর রাজনৈতিক রং লাগানোর চেষ্টা করছে। হিন্দু ও মুসলিমের মধ্যে বিভেদ তৈরি করার চেষ্টা করছে বলেও তিনি অভিযোগ করেন।

মোহন ভাগবত বলেন, সিএএ ও এনআরসি নিয়ে ভারতের মুসলিমদের ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই। দু’দিনের অসম সফরে গিয়েছেন মোহন ভাগবত। সেখানে একটি বই প্রকাশের অনুষ্ঠানে ভাগবত বলেন, “স্বাধীনতার পর ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী সংখ্যালঘুদের স্বার্থ রক্ষার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। আজ পর্যন্ত দেশে সেটাই মেনে চলা হচ্ছে। সিএএ-র কারণে কোনও মুসলিম অসুবিধার সম্মুখীন হবে না।”

অসমে “সিটিজেনশিপ ডিবেট ওভার এনআরসি এবং সিএএ অসম অ্যান্ড দ্য পলিটিক্স অফ হিস্ট্রি” নামাঙ্কিত একটি বইয়ের উদ্বোধন করেন মোহন ভাগবত। এদিনের অনুষ্ঠানে তিনি পাকিস্তানের কড়া সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, “কিছু রাজনীতিকের ব্যক্তিগত ইচ্ছার কারণে দেশভাগ হয়েছিল। কোনো বিপ্লবী কিংবা সাধারণ মানুষের মত নিয়ে দেশভাগ হয়নি। তবে দেশভাগের পর সংখ্যালঘুদের সর্বদা স্বার্থ রক্ষা করেছে ভারত। কিন্তু পাকিস্তানের ক্ষেত্রে তেমনটা হয়নি, বরং ওই দেশে হিন্দু, শিখ, জৈনদের ওপর অত্যাচার চলছে।”

এনআরসি প্রসঙ্গে আরএসএস প্রধান বলেন, প্রত্যেকটা দেশেরই অধিকার রয়েছে নিজের দেশের নাগরিকের সংখ্যা ঠিক কত সেটা সঠিক ভাবে জানার।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here