মানসিক অবসাদে এক রেলকর্মী সহ দুই জন আত্মঘাতী পুরুলিয়ায়

সাথী প্রামানিক, পুরুলিয়া, ১৫ মে: করোনা আবহে মানসিক অবসাদ কী বাড়ছে? মানসিক অবসাদে এক রেলকর্মী সহ দুই জন আত্ম হত্যার ঘটনায় এমনই প্রশ্ন জাগছে পুরুলিয়ায়।

অফিসের মধ্যেই গলায় দড়ির ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হন এক রেল কর্মী। মৃতের নাম স্বপন গরাই(৪৫)। বাড়ি পুরুলিয়া শহরে। তিনি আদ্রায় ডিআরএম অফিসের পাশেই অবস্থিত পার্সোনেল বিভাগের ক্লার্ক ছিলেন।
শুক্রবার সকালে তাঁর পার্সোনেল বিভাগের অফিসের মধ্যেই গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হন। কিছুক্ষণ পরে অন্যান্য কর্মীরা অফিসে এলে ঘটনাটি তাঁদের নজরে আসে। পুলিশকে খবর দেন তাঁরাই। আদ্রা থানার পুলিশ রেল কর্মীর ঝুলন্ত দেহটি উদ্ধার করে পুরুলিয়ার দেবেন মাহাতোর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায় ময়নাতদন্তের জন্য। ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। অফিসের মধ্যে কিভাবে এমন ঘটনা ঘটল তা নিয়ে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন।

অন্যদিকে, মানসিক অবসাদে গলায় দড়ির ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হন এক যুবক। পুলিশ জানিয়েছে, মৃতের নাম সমীর নন্দী (৩৩)। বাড়ি আদ্রা থানার আড়রার গোসাইডাঙ্গা গ্রামে। এদিন সকালে একাকীত্বের সুযোগে বাড়ির মধ্যে গলায় দড়ির ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হন ওই যুবক। ঘটনার কিছুক্ষণ পরে পরিবারের আত্মীয়রা বাড়িতে ফিরে এলে ঘটনাটি দেখতে পেয়ে চিৎকার চেঁচামেচি করেন। চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা সেখানে ছুটে গিয়ে তাঁরা দেখেন ওই যুবক গলায় দড়ির ফাঁস লাগিয়ে ঝুলছে। ফাঁস কেটে তাকে উদ্ধার করে রঘুনাথপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা যুবককে মৃত বলে ঘোষণা করেন। দুটি ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here